মা’হাদুল বুহুসিল ইসলামিয়ার বার্ষিক মাহফিল

মা’হাদ প্রতিবেদন

রাজধানীর মুহাম্মাদপুরে উচ্চতর ইসলামী শিক্ষা ও গবেষণা প্রতিষ্ঠান মা’হাদুল বুহুসিল ইসলামিয়ার বার্ষিক ওয়াজ ও দু‘আর মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে।

গতকাল ১১ নভেম্বর সোমবার মুহাম্মদপুরস্থ বসিলা গার্ডেন সিটি মসজিদ সংলগ্ন মাঠে এ মাহফিলের আয়োজন করা হয়।

বা’দ আসর থেকে শুরু হওয়া এ মাহফিলের সূচনা পর্বের বক্তব্যে মাওলানা আবূ সাইম সাহেব বলেন, এ সকল দীনী মাহফিল আয়োজনের উদ্দেশ্য হচ্ছে, আল্লাহ ও রাসূলের পক্ষ থেকে উলামায়ে কেরামের নিকট অর্পিত আমানত জনগণের নিকট পৌঁছে দেয়া। আলহামদুলিল্লাহ, মা’হাদ কর্তৃপক্ষ তা যথাযথভাবে করছে। সেলক্ষ্যেই কর্তৃপক্ষ এ মাহফিলকে গতানুগতিক সূরসর্বস্ব মাহফিল না বানিয়ে মানুষের হেদায়াতের কথা চিন্তা করেছে এবং সে নীতি অনুযায়ীই মাহফিলের আয়োজন থেকে শুরু করে বক্তা নির্বাচন সহ সকল কার্যক্রম পরিচালনা করছে।’

বাদ মাগরিবের বয়ানে বিশিষ্ট ইসলামী চিন্তাবিদ, ইসলাম টাইমস২৪.কম –এর সম্পাদক মাওলানা শরীফ মুহাম্মদ দা. বা. বলেন, ‘আল্লাহ তা‘আলা পবিত্র কুরআনে মুমিনের সফলতার যেসকল শর্ত উল্লেখ করেছেন সেগুলো যদি আমরা  পূরণ করতে পারি, তাহলে নিশ্চয়ই আমরা পিতামাতা থেকে সম্পদের ওয়ারিস হওয়ার মতোই মজবুতভাবে জান্নাতুল ফিরদাউসের অধিকারী হবো। ইনশাআল্লাহ।’

জামি‘আ রাহমানিয়া আরাবিয়ার মুহতামিম আল্লামা হিফজুর রহমান দা. বা. তাঁর বয়ানে মুসলমানদের জীবনে ঈমান, ইসলাম, আমল ইত্যাদি নেয়ামতের কথা উল্লেখ করে বলেন, ‘মুমিনের জীবনের সবচে’ গুরুত্বপূর্ন নেয়ামত হলো ইলমে দীনের নেয়ামত। এই নেয়ামত থেকে বঞ্চিত হলে মুসলিম জাতির অবস্থা হবে বুখারা-সমরকন্দের মুসলমানদের মতো।’

মাহফিলের প্রধান মেহমানের বক্তব্যে দেশবরেণ্য আলেমে দ্বীন আল্লামা নূরুল ইসলাম ওলীপুরী দা.বা. বলেন, দীনে ইসলাম একটি পরিপূর্ণ দীন। এতে নতুন কোন বিষয় অন্তর্ভুক্ত করার কোন অবকাশ নেই। করলে সেটা হবে বিদআত। বিদআত যদি কুফরের পর্যায়ের হয় তাহলে তো এর পরিণাম চিরজাহান্নাম, আর কুফরের পর্যায়ের না হলেও সেটা গোমরাহী; এর কারণেও নির্দিষ্ট সময়ের জন্য জাহান্নামের আযাব ভোগ করতে হবে।’

সভাপতির বক্তব্যে মা’হাদের প্রধান মুফতী, মুফতী ইবরাহীম হাসান দা. বা. বলেন, ‘এখন রবিউল আউয়াল মাস। এমাসেই আগমন করেছেন রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম। তাঁর আগমন আমাদের জন্য অবশ্যই খুশীর কারণ। তবে এ খুশী প্রকাশ করতে গিয়ে এবং রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামকে মর্যাদা দিতে গিয়ে কোনো কুফর-শিরকে লিপ্ত হওয়া যাবে না। দীনে ইসলামের গণ্ডির মধ্যে থেকেই রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের প্রতি সম্মান প্রকাশ করতে হবে। ’

মাহফিলে মা’হাদের আসাতিযায়ে কিরামের উপস্থিতিতে আমন্ত্রিত দেশবরেণ্য উলামায়ে কেরামের হাতে বিগত দু বছরের ফারেগীন ছাত্রদের দস্তারে ফযীলত প্রদান করা হয়। এসময় আগত মেহমান ও মাহফিলের সাথে সম্পৃক্ত সবাইকে শুকরিয়া জানান মা’হাদের সম্মানিত মুদীর, মাওলানা মাহমূদুল আমীন।

ইন্তেজামিয়া কমিটির ব্যবস্থাপনা ও এলাকাবাসীর সর্বাত্মক সহযোগিতায় অনুষ্ঠিত এ মাহফিলে আরো উপস্থিত ছিলেন মা’হাদের পরিচালনা পর্ষদ, প্রতিষ্ঠাতা সদস্য ও শুভানুধ্যায়ীগণ। উপস্থিত ছিলেন বিভিন্ন মাদরাসার উলমা-তলাবা সহ সর্বস্তরের দীনদার মুসলমানগণ। তাঁদের সকলের প্রতি মা’হাদ কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করছে।

মাহফিলের কামিয়াবির জন্যে মা’হাদ কর্তৃপক্ষ আল্লাহ তা‘আলার দরবারে শুকরিয়া আদায় করছে। সেই সাথে এতে ঘটে যাওয়া ভুল-ভ্রান্তির কারণে তাওবা ও ইস্তেগফার করছে।

পোস্টটি লাইক ও শেয়ার করুন।
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •